October 17, 2021

উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির বড় মায়ের মন্দিরে চলছে অন্নদান পরিষেবা

মহন্ত দাশগুপ্ত – নৈহাটি

জগদ্বিখ্যাত ও জাগ্রত নৈহাটির (বড়মা তলার) বড়মাকে কেনা জানেন, নৈহাটির বড়মাকে ? বিশাল তার চক্ষু জোড়া যা, বহুদূর পর্যন্ত লক্ষ্য রাখেন তার করুনার দৃষ্টি দিয়ে। বিরাট তার মহিমা, তাকে ভক্তি ভরে ডাকলেই তার মহিমার বেড়াজালে পড়লে অসময়ে ও অপঘাতে আপদে বিপদে মা পাশে থাকেন কারণ মা মা বলে ডাকলেই মা তাদের সন্তানদের মতো স্নেহ পর বসে কথা শোনেন এবং তাকে রক্ষা করারও চেষ্টা করেন সর্বদা। ঠিক এভাবেই বড় মা তার যথা সাধ্য বা সাধ্যমত গরিব দুঃখী অসহায় মানুষদের মুখে অন্ন তুলে দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছেন, ঠিক নিজের মায়ের মতো। বড় মায়ের সন্তানেরা লকডাউন শুরুর প্রথম সপ্তাহেই ২৭ মার্চ থেকে বড় মায়ের রন্ধনশালায় শুরু করে দেন, লকডাউনে পড়া হাজার হাজার

মানুষের জন্য রন্ধন প্রণালীর কাজ। করোনা ভাইরাস এর কোভিড 19 এর হাত থেকে রক্ষা পেতে সারা বিশ্বে যুদ্ধ চলছে। ভারতের প্রতিটি রাজ্যের সাথে পশ্চিম বাংলাতেও চলছে করোনা প্রকোপের ভয়াবহ পরিস্থিতি প্রথমে চব্বিশে মার্চ থেকে সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সারা বাংলায় লকডাউন শুরু হওয়ার পরেই ২৭ শে মার্চ থেকে মঙ্গলময় বড় মায়ের কৃপায় বড়মা নিবাসের রন্ধনশালায় শুরু হয়ে যায় লঙ্গরখানা। পর্যায় ক্রমে লকডাউন বাড়াতে থাকে মোদীজি, আর লকডাউন এর সময় সীমা বাড়ার সাথে সাথে সময় সীমা বাড়তে থাকে বড় মায়ের লঙ্গরখানায় হাজার হাজার মানুষের জন্য অন্ন সংস্থানের কর্মযজ্ঞ । আজ ৭ ই মে লকডাউন চলা কালীন বড় মায়ের অন্ন দানের পরিষেবা ৪৫ দিনে পড়ল। বড় কালী পূজা সমিতির সভাপতি স্বপন দত্ত ও সম্পাদক তাপস ভট্টাচার্য্য বলেন, যতদিন লকডাউন চলবে ততদিন বড় মায়ের আশীর্বাদে বড় মা নিবাসের বিশাল রন্ধনশালায় লকডাউনে বিপদে পড়া অসহায় মানুষদের জন্য রান্না করা অন্নদার পরিষেবার কাজ চলবে। সভাপতি ও সম্পাদক বলেন, আমরা মানুষের কাছে গিয়ে রান্না করা খাবার পৌঁছে দিয়েছি, এতদিন ধরে কোনরকম রাজনীতির সংস্পর্শ ছাড়া। বড় মায়ের এখানে কোনও রকম রাজনীতি চলে না। বড়মা এসব পছন্দও করে না। যতদিন লকডাউন চলবে আমরা ততদিন বড় মায়ের ইচ্ছানুসারে দুর্দশাগ্রস্ত অসহায় মানুষদের মুখে অন্ন তুলে দেওয়ার প্রচেষ্টা জারি রাখবো।

Total Page Visits: 719 - Today Page Visits: 2