June 21, 2021

থিম শিল্পী পাপাই সাঁতরার মুখো মুখি সাক্ষাতকার

সাধনা মিস্ত্রি –

থিম শিল্পী পাপাই সাঁতরার একন্তে মুখো মুখি সাক্ষাৎকারে আমাদের প্রতিনিধি সাধনা মিস্ত্রি ১৯৯১ সালে ৪ঠা নভেম্বর জন্মগ্রহণ করি একটি গরিব পরিবারে । আমাদের পরিবারের সবারই মাছের ব্যবসা। আমাদের পরিবারের ছেলেদের তেমন লেখাপড়া শেখানো হয় না। ছেলেরা একটু বড় হলেই পারিবারিক ব্যবসায় যোগ দিতে হয়। ২০০০ সালে পরিবারের লোকেরা আমাকে লেখাপড়া ছাড়িয়ে মাছের ব্যবসায় যোগ দিতে বাধ্য করে । আমার মায়ের স্বপ্ন ছিল ছেলেকে উচ্চ শিক্ষিত করার । তাই মায়ের হাত ধরেই পরিবারকে ত্যাগ করি এবং শ্রীগোপাল বিদ্যাভবন প্রমোদভবন বোর্ডিং স্কুলে দু বছর পড়াশোনা করি। ছোটবেলা থেকেই আঁকাটা কে ভালবাসতাম সময় পেলেই খেলা হিসেবে আঁকা টাকেই বেছে নিয়েছিলাম। ছোটবেলায় বহু আঁকা প্রতিযোগিতায় পুরস্কৃত হয়েছি। এরপর “The Park Institution” স্কুল থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাস করি। পড়াশোনার খরচ চালাতাম ক্যাটারিং ও হাতিবাগান বাজারে হকারির কাজ করে এবং বিভিন্ন বাড়ির দেওয়ালে ছবি এঁকে। উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পর প্রায় দু’বছর পর আর্ট কলেজের সম্পর্কে জানতে পারি। এক দাদার অধীনে আঁকা শিখে পরীক্ষা দিই “The Indian College Of Art And Draft

Statementship College”- এ এবং ওই কলেজে সুযোগ পেয়ে যাই। সকালে একটি অফিসে কাজ করতাম। বিকেলে কলেজ করতাম। রাত্রে বাড়ি ফিরে কলেজের কাজ করতাম পুজোর সময় রাতে প্যান্ডেলে কাজ করতাম। এই ছিল আমার প্রতিদিনের রুটিন ২০১৭ সালে হালদার বাগান সর্বজনীনের পুজো প্যান্ডেল করি, সেই বারের থিম ছিল “অসুর বধে নবদুর্গা ” । সেই বছরের সাতটি পুরস্কার জিতে নেয় আমার হাতে সজ্জিত মন্ডপ তার মধ্যে ছিল শ্রীরাম শারদ সম্মান, শিশু দর্পণ, উৎসব শ্রী ইত্যাদি ।
২০১৮ সালে বেহালা শকুন্তলা পার্ক নেতাজী সংঘ, ডাফ স্ট্রীট ও টালা দক্ষিণ পল্লীর মন্ডব রূপায়নের কাজ করি । ২০১৯ – এ শ্যামবাজার পল্লী সংঘ এবং রামমোহন স্মৃতি সংঘতে মন্ডপ রূপায়নের কাজ করছি। আমি ধন্যবাদ জানাই আমার সকল পুজো উদ্দোগতাদের আমায় বেছে নেওয়ার জন্য । ও নিউজ বেঙ্গল অনলাইন মিডিয়া কে আমার পাশে থাকার জন্য ।

Total Page Visits: 341 - Today Page Visits: 2