December 2, 2021

দ্বিগুণ বাড়ল ডারামিকের দহেজ উৎপাদন কেন্দ্রের ক্ষমতা

নিজস্ব প্রতিনিধি –

সারা বিশ্বে শিল্পক্ষেত্র, গাড়ি এবং স্পেশ্যালিটি অ্যাপ্লিকেশনে ব্যবহৃত লেড-অ্যাসিড ব্যাটারি সেপারেটরের বৃহত্তম উৎপাদক আসাহি কাসেই গ্রুপের সংস্থা ডারামিক। গুজরাতের দহেজ প্লান্টের উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধির মধ্যে দিয়ে তারা ভারতে তাদের কর্মকাণ্ডের বিস্তার জারি রাখল। ভারত ও প্রতিবেশি দেশগুলিতে বাড়তে থাকা চাহিদার জোগান মেটাতে মাত্র চার বছরের মধ্যে উৎপাদন কেন্দ্রটির প্রোডাকশন লাইনের সংখ্যা দুই থেকে বাড়িয়ে চার করা হল। দেশেই চারটি প্রোডাকশন লাইন হয়ে যাওয়ায় ভারতীয় ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে সংস্থাকে আর অন্যত্র হবে না। বর্তমানে ক্রেতারা বিশ্বব্যাপী যে সাপ্লাই চেন সঙ্কটের সম্মুখীন, তারও সুরাহা হবে। পার্শ্ববর্তী অঞ্চলেও রফতানির সম্ভাবনা বাড়বে। ডারামিক ভারতের প্রধান ব্র্যান্ডগুলির মুখ্য উপাদান উৎপাদক এবং বাজারের সিংহভাগ এই সংস্থারই দখলে। ২০১৭ সালে দহেজে এই উৎপাদন কেন্দ্রটি গড়ে তোলা হয়। বিগত চার বছর ধরে এই সংস্থার উন্নতি দুই অঙ্কের সংখ্যায়। পিই সেপারেটর তৈরি এবং ফিনিশিংয়ের জন্য এই উৎপাদন কেন্দ্রটি ব্যবহার হয়। এছাড়াও এখানে পরীক্ষামূলকভাবে কিছু প্রোডাক্টের উৎপাদন হচ্ছে যেগুলো এখনও বাণিজ্যিক ভাবে পাওয়া যায় না। বিগত চার বছরে দহেজের এই উৎপাদন কেন্দ্রে শয়ে শয়ে কাজ পেয়েছেন। এখানকার ৮০ শতাংশের বেশি কর্মচারীই স্থানীয় বাসিন্দা। ডারামিকের দহেজ ইউনিটের উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধ প্রসঙ্গে সংস্থার প্রেসিডেন্ট চ্যাদ শাখম্যান বলেন, “অত্যাধুনিক দহেজ প্লান্টের উৎপাদন ক্ষমতা বাড়াতে পেরে আমরা আনন্দিত। এর ফলে উৎপাদন এবং ভারতের বাজারে আমাদের উপস্থিতি, দুই-ই বাড়বে। দেশের প্রয়োজন বদলাচ্ছে, আর তাই লেড-অ্যাসিড সেপারেটর শিল্পে বিশ্বের অগ্রণী সংস্থা হিসেবে উদ্ভাবনী ব্যাটারি সেপারেটর তৈরি করতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী সাপ্লাই চেনে টান রয়েছে। এই অবস্থায় ডারামিক ভারতে প্রধান ক্রেতাদের চাহিদার জোগান দিতে তৈরি। প্রয়োজনে পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে সংস্থার রফতানির ক্ষমতাও রয়েছে। ডারামিকের দহেজ উৎপাদন কেন্দ্রটি নিজের উদ্ভাবনী ক্ষমতার জোরে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যাটারি সেপারেটর উৎপাদন এবং বাজারের প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন ধরনের সেপারেটর তৈরিতে সক্ষম।”

ভারতে সংস্থার কাজের সুযোগ প্রসঙ্গে ডারামিকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আহিলা কৃষ্ণমূর্তি বলেন, “ভারতে আমরা যেভাবে অগ্রগতি করেছি তাতে এই দেশের বাজার আমাদের কাছে দারুণ আকর্ষণীয়। ভারতের ছোট ছোট শহরে উন্নততর বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের চাহিদা বাড়ছে। এর জন্য তো বটেই, সেই সঙ্গে গাড়ি শিল্পে উদ্ভাবনী উপাদান সামগ্রী, শিল্পক্ষেত্রের জন্যেও ভারতে লেড-অ্যাসিড ব্যাটারির ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। সব মিলিয়ে আগামী এক দশকে ভারতের বাজারে লেড-অ্যাসিড ব্যাটারির চাহিদা মারাত্মকভাবে বাড়বে। এখানে আমরা যে বিনিয়োগ করেছি তা দেশের ভবিষ্যৎ প্রতি আমাদের দৃঢ় আস্থারই প্রতিফলন। শক্তিক্ষেত্রে দেশের বাড়তে থাকা চাহিদার জোগান দিতে আমরা বদ্ধপরিকর। বাজারের এই চাহিদা মেটাতে আমরা সর্বোৎকৃষ্ট ব্যবস্থা গড়ে তুলছি। আমরা আশাবাদী যে আগামী দিনে ভারতের অগ্রগতিতে আমরাও নিজেদের অবদান রাখব।”

ডারামিক সম্পর্কে কিছু কথা

ডারামিক এলএলসি, আসাহি কাসেই গ্রুপের একটি কোম্পানি। সংস্থার বয়স ৯০ বছর। এই সংস্থা বিশ্বের বৃহত্তম পলিইথিলিন (পিই) সেপারেটর উৎপাদক। শিল্প ক্ষেত্র, গাড়ি এবং স্পেশ্যালিটি অ্যাপ্লিকেশনের জন্য সারা বিশ্বে লেড-অ্যাসিড ব্যাটারি শিল্পে ব্যবহৃত ফেনোলিক রেজিন-ভিত্তিক সেপারেটরের একমাত্র উৎপাদকও বটে।

১৯৬৯ সালে পলিইথিলিন সেপারেটর তৈরির মাধ্যমে এই সংস্থা লেড-অ্যাসিড ব্যাটারি শিল্পে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার পথ প্রশস্ত করে। লেড-অ্যাসিড ব্যাটারির সমস্ত বড় উৎপাদককে তা সরবরাহও শুরু হয়। সময়মতো ক্রেতাদের চাহিদার জোগান দিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, চিন এবং তাইল্যান্ড মিলিয়ে আটটি জায়গায় কৌশলগত ভাবে সংস্থার উৎপাদন কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়েছে।

ভারতে ডারামিকের পথ চলা শুরু ২০০৮ সালে, ব্যাঙ্গালোরে। পরবর্তী সময়ে এই সংস্থা ভারতের বৃহত্তম সেপারেটর সর্বরাহকারী হিসেবে নিজের জায়গা পাকা করেছে। ভারতীয় ক্রেতাদের বাড়তে থাকা চাহিদা মেটাতে সংস্থা ২০১৭ সালে গুজরাতের দহেজে একটি উৎপাদন কেন্দ্র গড়ে তোলে। এই উৎপাদন কেন্দ্র এবং ফিনিশিং ফেসিলিটি ছাড়াও দহেজে ডারামিকের একটি গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র এবং হিমাচল প্রদেশে একটি ফিনিশিং প্লান্ট রয়েছে।

বিগত চার বছরে ডারামিক তাদের উৎপাদন ক্ষমতাকে দ্বিগুন করেছে। সংস্থা ‘থিঙ্ক গ্লোবাল, অ্যাক্ট লোকাল’ মন্ত্রে বিশ্বাসী। ডারামিক আন্তর্জাতিক দক্ষতাকে ভারতে নিয়ে এসেছে যাতে উন্নত মান এবং পছন্দমতো পণ্য তৈরি করে ক্রেতাদের মন জয় করা যায়। বিশদে জানতে www.daramic.com দেখুন।

Total Page Visits: 36 - Today Page Visits: 1