March 6, 2021

সল্টলেকের রেস্ট্রো বার ফাইভ ম্যাড মেন এ মুক্তি পেল বাংলা ছায়াছবি হীরালালের পোস্টার ও ট্রেলার

নিজস্ব প্রতিনিধি –

ইন্দ্রজিৎ রায় পরিবেশিত অরুণ রায় পরিচালিত, ইজেল মুভিজ প্রযোজিত, আত্রেয়ি নির্মাণের উদ্যোগে ছবি হীরালাল কলাকুশলীদের উজ্জ্বল উপস্থিতিতে পোস্টার ও ট্রেলর মুক্তি পেল ছবির। ছবির নাম চরিত্রাভিনেতা কিঞ্জল নন্দ, পরিচালক অরুণ রায়, প্রযোজক ইন্দ্রজিৎ রায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, অনুষ্কা চক্রবর্তী, শঙ্কর চক্রবর্তী, অর্ণ মুখোপাধ্যায়, তন্নিষ্ঠা

বিশ্বাস, পার্থ সিনহা প্রমুখ।হীরালাল ভারতীয় চলচ্চিত্রের জনক হীরালাল সেনের বায়োপিক। পরিচালনায় রয়েছেন ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার বিজেতা পরিচালক অরুণ রায়। ছবিতে হীরালাল সেনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন কিঞ্জল নন্দ। ভারতবর্ষে প্রথম বিজ্ঞাপন ছবি ও পলিটিক্যাল ডকুমেন্টারি নির্মাণের শিরোপা যায় হীরালাল সেনের প্রতি। অথচ অধিকাংশেরই ভারতীয় চলচ্চিত্রের এই পথিকৃতের বিষয়ে জানার পরিধি অত্যন্ত কম। ১৮৬৬ সালে অধুনা বাংলাদেশে জন্মগ্রহণ করেন হীরালাল সেন। এক অত্যন্ত ধনী পরিবারে বড় হয়েছিলেন তিনি, আর জীবনের অন্যতম নেশা ছিল স্থির চিত্র তোলা। ১৮৯৮ সালে কোলকাতার স্টার থিয়েটারে একটি চলচ্চিত্র দেখে চলচ্চিত্রের প্রতি অনুরাগী হয়ে পড়েন তিনি। ইংল্যান্ড থেকে আমদানি

করেন ক্যামেরা এবং তার ভাই মতিলাল সেন খোলেন ছবি প্রযোজনার সংস্থা রয়াল বায়োস্কোপ কোম্পানি। নান্দনিকতা এবং বাণিজ্য পরের কয়েক বছরে এই কোম্পানির সঙ্গে বিজ্ঞাপন ছবি, ডকুমেন্টারি ছবি ও থিয়েটারের ফিল্মড সিন চলচ্চিত্রায়িত করে এক ভিন্ন মাত্রা পায়। কিন্তু হীরালাল ছিলেন শিল্পী, তার বাণিজ্যিক বুদ্ধির অভাবে ১৯১৩ সালেই বন্ধ হয়ে যায় এই

কোম্পানি। ১৯১৭ সালে খুবই আকস্মিক ভাবে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান হীরালাল সেন। তার কিছুদিন আগে তার ওয়্যার হাউসে এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ধ্বংস হয়ে যায় তার সারা জীবনের কাজ। ছবির বিষয়ে বলতে গিয়ে ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রাভিনেতা কিঞ্জল নন্দ বলেন, “এমন একটা প্রয়োজনীয় ছবির সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে ভীষণ আপ্লুত। হীরালাল সেন ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের ভুলে যাওয়া এই তারকা প্রথম চলচ্চিত্র কে বিনোদন ও তথ্য সম্প্রচারের এক গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে জনগণের মধ্যে ছড়িয়ে দেন। আমি ছবিতে তার বৈপ্লবিক চরিত্রে অভিনয় করছি। ছবিটা সমস্ত কলাকুশলী দের অক্লান্ত পরিশ্রম ও নিয়োজিত

একগ্রতার ফসল। সঙ্গে প্রযোজনা সংস্থা ইজেল মুভিজ ও আত্রেয়ী নির্মাণের উদ্যোগের সহযোগিতা অবশ্যই রয়েছে। আমি নিশ্চিত ছবির মধ্যে দর্শক সেই পরিশ্রম দেখতে পাবেন। আগামী ৫ ই মার্চ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে চলেছে অরুণ রায় পরিচালিত ছবি হীরালাল, অবশ্যই হলে এসে ছবিটি দেখুন।” অন্যদিকে পরিচালক অরুণ রায় জানালেন, “হীরালাল ছবিটি হীরালাল সেনের জীবন ও কাজকর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নির্মিত। হীরালাল সেন প্রকৃত অর্থেই ভারতীয় চলচ্চিত্রের জনক। যদিও জনতা দাদা সাহেব ফালকে কে এই খেতাবে

ভূষিত করে। ১৯১৩ খ্রিষ্টাব্দে দাদা সাহেব ফালকে রাজা হরিশচন্দ্র ছবি নির্মাণের প্রায় দশ বছর আগেই ছবি নির্মাণে সফল হয়েছিলেন হীরালাল সেন। বাঙালী দর্শকের জন্য এই ছবিটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় যেহেতু তারা এমন বৈপ্লবিক একজন বাঙালীকে ভুলতে বসেছেন। ছবিটি ৫ ই মার্চ মুক্তি পেতে চলেছে, আমরা হীরালাল সেনের সময় ও জীবন এই ছবিতে

পুনঃনির্মাণের চেষ্টা করেছি, আর আশা রাখি এই প্রচেষ্টা দর্শকদের পছন্দ হবে। ছবির পোষ্টারের প্রতি মানুষের ছিঁড়ে ফেলা, থুতু ফেলা, প্রস্রাব করার মতোন অসহিস্থু কাজকর্মের বাড়বাড়ন্তের কারণে এই ছবির কোনো পোস্টার কোলকাতা শহরে আমরা লাগাচ্ছি না। কিন্তু বিনীত নিবেদন রইলো সকলে হলে এসে ছবিটা দেখুন এবং এই লার্জার দ্যান লাইফ অনুভূতি উপভোগ করুন।

Total Page Visits: 50 - Today Page Visits: 1