May 7, 2021

সাংবাদিক সম্মেলন হয়ে গেল কলকাতা আন্তর্জাতিক পুস্তক মেলার

মহন্ত দাশগুপ্ত –

কলকাতা প্রেস ক্লাবে আন্তর্জাতিক বইমেলার প্রস্তুতি পর্বের সাংবাদিক বৈঠক করা হল। পৃথিবী ব্যাপি অতিমারি করোণার ( কোভিড ১৯ ) কারণে ৪৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০২১ তার নির্ধারিত সময়ে আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। মেলার সময় পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে আমরা বাধ্য হয়েছিলাম। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকখানি স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। আশা করা যায় খুব দ্রুত আমরা অতিমারির সংকট কাটিয়ে উঠতে পারবো। এই কথাগুলি কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন গিল্ডের সভাপতি ত্রিদিব কুমার চট্টোপাধ্যায় ও সাধারণ সম্পাদক সুধাংশু শেখর দে। গিল্ড-র সভাপতি আরও বলেন আগামী আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলার “ফোকাল থিম কান্ট্রি হবে বাংলাদেশ।” ২০২১ সাল হল বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমান-র জন্ম শতবর্ষ। একই সঙ্গে ২০২১ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার ৫০ বছর। তাই আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০২১ উৎস্বর্গ করা হবে বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমান এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার নামে। একই সঙ্গে নেতাজী সুভাষচচন্দ্র বসুর ১২৫ তম জন্মবর্ষ ও সত্যজিৎ রায়ের জন্মবর্ষও পালিত হবে আগামী আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলায়। বিষাদময় ২০২০ সালে অনেক গুনীজন যেমন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, প্রনব মুখোপাধ্যায়, আনিসুজ্জমান, দেবেশ রায়, নিমাই ভট্টাচার্য,মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, অলোকরঞ্জন দাশগুপ্ত, স্বপন মজুমদার প্রমূখ আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। বইমেলায় আমরা শ্রদ্ধার্ঘ জানাবো সেইসব বিশিষ্ট জনেদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে। ত্রিদিববাবু ও সুধাংশু শেখর দে আরও বলেন, রাজ্যে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন, আই সি এস সি, সিবিএসসি বোর্ডের পরীক্ষা এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা সূচির কারণে ৪৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০২১ আগামী জুলাই মাসে আয়োজিত হবে সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কে। প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই মেলার আয়োজন করা হবে। আশা করি ততদিনে আন্তর্জাতিক উড়ান চলাচল শুরু হবে এবং অন্যান্য বারের মতোই এবারেও বইমেলায় বিভিন্ন দেশের উপস্থিতি ও সক্রিয় অংশগ্রহণ আমরা পাবো। ত্রিদিববাবু বলেন, ৪৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলায় অংশগ্রহণের জন্য প্রকাশক, পুস্তক বিক্রেতা, লিট্টল ম্যাগাজিন ও অন্যান্য সব আবেদন পত্র গিল্ড-র অফিসে জমা নেওয়া শুরু হবে আগামী ১ মার্চ ২০২১ থেকে। এদিন গিল্ড আয়োজিত সাংবাদিক বৈঠকে কলকাতা প্রেস ক্লাবে উপস্থিত ছিলেন,বাংলাদেশের ডেপুটি হাই কমিশনার তৌফিক হাসান, বইমেলার দুই কর্ণধার ত্রিদিব কুমার চট্টোপাধ্যায় ও শুধাংশু শেখর দে ছাড়াও আরও অনেক বিশিষ্ট অতিথিবর্গ। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ত্রিদিব কুমার চট্টোপাধ্যায়।

Total Page Visits: 242 - Today Page Visits: 2