May 17, 2021

স্বতন্ত্র প্রযুক্তি দিয়ে ডিজিটাল ক্লাসরুম পরিষেবায় জাতীয় উৎকর্ষ বেহালা কলেজ

নিজস্ব প্রতিনিধি –

গৃহবন্দি সাধারণ মানুষ , কিন্তু তাই বলে বন্দি নেই তার কর্মপ্রক্রিয়া – সে তথ্যপ্রযুক্তি হোক কিংবা শিক্ষা। প্রায় সব ক্ষেত্রেই ওয়ার্ক ফ্রম হোমের নির্দেশকে মান্যতা দিয়ে চলছে প্রযুক্তির সহায়তায় কাজ। প্রশাসনিক কাজের সক্ষমতা বাড়াতে নেটিজেনদের পছন্দের তালিকায় ভিডিও কনফারেনসিং ব্যবস্থা। সাম্প্রতিক জুম নামক এই ব্যবস্থার উপর কেন্দ্রীয় সরকার এডভাইসরি জারি করে বলেছে তা একেবারেই নিরাপদ নয়। এই ব্যবস্থার সাথে যুক্ত থাকা ৯৯ শতাংশ মানুষ ,প্রধানত শিক্ষা ক্ষেত্রে যুক্ত থাকা ব্যবহারকারীরা পড়েছে মহাসংকটে। লড়াই চলেছে করোনা ভাইরাস বনাম মানবজাতির। এ লড়াই বিশ্বজুড়ে এর বাইরেও চলেছে অভ্যন্তরীন আরেক লড়াই- তথ্য সংরক্ষণ বনাম তথ্য বিক্রি। শিক্ষা ক্ষেত্রে এর প্রকোপ পড়লেও বেহালা কলেজ তার সার্বিক স্বতন্ত্র প্রযুক্তি ব্যবহারে শিক্ষা বিতরণে হয়ে উঠেছে জাতীয় ক্ষেত্রের উদাহরণ । সম্পূর্ণ নিজস্ব সার্ভার ব্যবহার করে তাঁরা অতি দ্রুততার সাথে তৈরী করেছেন লাইভ ডিজিটাল ক্লাসরুম ব্যবস্থা। লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম দ্বারা তাঁরা আগেই নিজস্ব প্রযুক্তি ব্যবহারে সাফল্য পেয়েছিলেন, এবার যুক্ত হলো আরো নিপুণ প্রযুক্তি ব্যবহার। সামগ্রিক ভাবনা বেহালা কলেজের অধ্যক্ষ ডঃ শর্মিলা মিত্রের তিনি জানিয়েছেন,’প্রথম থেকেই স্বতন্ত্রভাবে ডিজিটাল ক্লাসরুম তৈরীতে আগ্রহী ছিলাম। কোনো সংস্থার সাথে সার্ভার ভাগ করে নেবার কোনও ভাবনা ছিল না আগামীদিনে শুধু ক্লাস না, কনফারেন্স,ওয়েবিনারের মতন আরো বৃহত্তর ক্ষেত্রে এটি কাজ করতে সক্ষম থাকবে’। অধ্যক্ষের ভাবনাকে পরিপূর্ণতা দিয়েছেন কলেজের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপিকা ডঃ উজ্জয়িনী মুখোপাধ্যায় যিনি আইকিউএসি কোঅর্ডিনেটারও। অধ্যক্ষের এই ভাবনাকে বাস্তব রূপ দিয়েছেন রাইট ব্রেইন্স টেকনোলজি। সংস্থার কর্ণধার রাজীব মুখার্জি সার্বিক মানের প্রযুক্তি সহায়তা দিতে পেরে খুশি। বিশ্ব তথা দেশ জুড়ে যেখানে তথ্য আদানপ্রদানের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা বিধিকে মান্যতা দেওয়া অবশ্য কর্তব্য।শুধু জুম নামক মার্কিন টেলি কনফারেনসিং অ্যাপ নয় এমন অনেক প্রযুক্তি ব্যবহার হয় যেখানে নিরাপত্তা বিধিকে মান্যতা দেওয়া হয় না শুধু ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে।বেহালা কলেজের আধুনিক প্রযুক্তি সহায়তায় লাইভ ডিজিটাল ক্লাসরুম, ভার্চুয়াল ক্লাসরুম গড়ায় রইলো পথিকৃৎ হয়ে। ব্যবহারকারীরা নিশ্চিন্ত কারণ তাদের সুরক্ষা কবজ বহাল এবং সর্বোপরি এতে নেই ব্যবসায়িক চেতনা, আছে জাতীয় সমর্পন। প্রত্যেকদিন নিয়ম করে চলছে ক্লাস। প্রতি ক্লাস শুরুর আগে শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের নিজস্ব আই ডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ-ইন করতে পারছেন। ব্যবস্থা এতটাই উন্নত যে নির্দিষ্ট সময়ের পরে অনুমতি ছাড়া লাইভ ক্লাসে ঢোকা বন্ধ। তবে পরবর্তী সময় রেকর্ডিং দেখার সুযোগ বহাল থাকছে। নিষেধাজ্ঞা রয়েছে ফাইল ট্রান্সফারে এবং স্ক্রিন শেয়ারের ক্ষমতাও থাকছে পরিচালক বা হোস্ট নিয়ন্ত্রিত। একটি ক্লাস চলাকালীন ছাত্র-শিক্ষক আদানপ্রদানে তাই থাকছেনা কোনো বাধা। প্রতি ক্লাস শেষ হলে লগ আউট করলে তবেই সংযুক্ত হচ্ছে উপস্থিতি সংখ্যা। শুধু পঠনপাঠন নয় লক ডাউনে কলেজের প্রশাসনিক কাজও অনেক সহজ করেছে এই প্রযুক্তি প্লাটফর্ম।খুব সহজেই কোনো বিষয়ে কনফারেন্স সংগঠিত করা যাচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহনেও থাকছে না দূরত্বের বাধা। ‘ ডার্ক ওয়েবে’ তথ্য বিক্রি হয়ে যাবার সম্পূর্ণ ভয় নির্মূল করে এই প্রচেষ্টা হয়ে উঠেছে কুর্নিশ যোগ্য যা ব্যবহার করতে পেরে সোশ্যাল মিডিয়াতে সচল যুব সমাজ বলছে-এই প্রযুক্তিই আমাদের চাই।

Total Page Visits: 702 - Today Page Visits: 1

এক ঝলকে