August 11, 2022

পুনরায় মুক্তি পেতে চলেছে পরিচালক রোহন সেনের দ্বিতীয় ছবি “অপরাজিতা”

শ্রীজিৎ চট্টরাজ – কলকাতা
পরিচালক রোহন সেনের দ্বিতীয় ছবি অপরাজিতা। ছবির কাহিনী, চিত্রনাট্য, সংলাপ পরিচালকের। কিছুক্ষণ এন্টারটেনমেন্ট প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যানারে তৈরি ছবির চিত্রগ্রাহক রিপন হোসেন। সম্পাদনা সায়ন্তন নাগের। সঙ্গীত পরিচালনা কৃষ্ণেন্দু রাজ আচার্যের। কণ্ঠদান করেছেন ছবির প্রযোজক ও অভিনেত্রী অমৃতা দে এবং অনুপম রায়। গানগুলি লিখেছেন রাজ সেন, কৃষ্ণেন্দু রাজ আচার্য এবং পরিচালক রোহন সেন। ছবির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে কন্যা ও পিতার সম্পর্কের টানাপোড়েন নিয়ে। বিশ শতকের শুরু পর্যন্ত পরিবার ছিল একান্নবর্তী। ফলে পরিবারের সন্তানরা মা বা বাবার সানিধ্য কম পেলেও পুষিয়ে দিতেন ঠাকুমা,

ঠাকুরদা, জেঠু,কাকু,জেঠিমা কাকিমারা। আজ নিউ ক্লিয়ার ফ্যামিলি। আর্থ সামাজিক ও অবস্থার পরিবর্তন ঘটেছে।
মেয়েদের শিক্ষার হার বেড়েছে। সমাজে পুরুষ সন্তানের পাশাপাশি কন্যা সন্তানরাও সমান গুরুত্ব পাচ্ছেন। ফলে মেয়েদের অধিকার বোধ আরও জাগ্রত হচ্ছে। সেখানে কোনো রসায়নের অভাবে পিতা_পুত্রীর সম্পর্কে তিক্ততা এসেছে এমনই গল্প বুনেছেন পরিচালক স্বয়ং। ছবিতে কন্যা অপরাজিতা চরিত্রে অভিনয় করেছেন তুহিনা দাস। যিনি ইতিমধ্যেই অপর্ণা সেনের ছবিতে অভিনয় করে দর্শকদের কাছে পরিচিত হয়েছেন। পিতার চরিত্রে শক্তিশালী অভিনেতা শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়। একটি ত্রিভূজ সম্পর্কের ছবিতে কন্যার বন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রায় নবাগত দেবতনু। নায়িকা তুহিনার দিদির চরিত্রে অভিনয় করেছেন ছবির প্রযোজক অমৃতা দে। ছবিতে তাঁকে আমেরিকাপ্রবাসী করা হয়েছে। কিন্তু বন্ধু বা দিদি কেউই পারেননি কন্যা ও পিতার সম্পর্ককে স্বাভাবিক করতে। সেখানে মুস্কিল আসানে এসেছে একটি চরিত্র। পারিবারিক চিকিৎসক। এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন রানা বসু ঠাকুর। পরিচালক বলেছেন, মাতৃহারা কন্যা অপরাজিতা পিতার কাছ থেকে যে উষ্ণ পরশ আশা করেছিলেন পিতৃত্বের সম্পর্কের নিরিখে তা তিনি পাননি। তাই একই ছাদের তলায় থেকেও দুজনের মধ্যে কথা ছিল না। একি দুজনের ইগো? বিজ্ঞান বলছে, ফ্রয়েডীয় তত্ত্বে শৈশবে পিতার প্রতি কন্যার এক ধরনের আকর্ষণ গড়ে ওঠে সন্তানের অকালজাতক যৌন চেতনার প্রভাবে। কিন্তু

রোহনের গল্পে সে সূত্র খাটে না। কেননা মেয়ে জেনেছে, তার প্রয়াত মায়ের প্রতি বাবার উদাসীনতা ছিল চরম। সুতরাং পিতার প্রতি কন্যার অতিরিক্ত অধিকার বোধ থেকে তীব্র তিক্ততা তৈরি হতেই পারে । মনস্তত্ত্ব এটাও বলে, কন্যার অবচেতন মনে পিতা আকাশ সমান নির্ভরতা, আদর, স্নেহ,আস্থার প্রতীক । সেখানে এই নিরাপত্তার অভাবে মেয়েরা তীব্র মানসিক অস্তিত্বহীনতায় ভোগে। পিতার প্রতি অবিশ্বাস ,ঘৃণা দুজনের সম্পর্কে চিড় ধরায়। পরিচালকের দাবি, তিনি সন্তর্পনে ছবির কাহিনী এগিয়ে নিয়ে গেছেন । এই মুহূর্তে ছবিটি কলকাতায় মুক্তি পাওয়ার পর বাংলার গ্রামাঞ্চলে মুক্তি পেতে চলেছে। পরিচালক রোহন সেন ও প্রযোজক অমৃতা দে’র বিশ্বাস, কলকাতায় মানুষের প্রশংসা পেয়েছে এই ছবি। সুতরাং বাবা মেয়ের সম্পর্ক বিশ্বজনীন, তাই গ্রামাঞ্চলেও দর্শকদের আশীর্বাদ পাবে অপরাজিতা ছবিটি।

ছবি – রণেশ বিশ্বাস।

About Post Author

Total Page Visits: 34 - Today Page Visits: 1